দেশে আরও মৃত্যু ৫৫ , নতুন শনাক্ত ৩০২৭, নমুনা পরীক্ষা ১৩১৭৩

0 0
Read Time:5 Minute, 40 Second

দ্যা ডেইলি নিউজ |কোভিড-১৯ : করোনাভাইরাসে সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনভাইরাস সংক্রমণে ৫৫ জন মারা গেছে এবং নতুন করে ৩ হাজার ২৭ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছ ।


স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) ডাঃ নাসিমা সুলতানা এক ব্রিফিংয়ে বলেন গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের ঢাকার আহসানিয়া মিশন ক্যান্সার হাসপাতালে আরটিপিসিআর ল্যাব চালু হওয়ায় দেশে এখন ৭৪টি গবেষণাগারে কোভিড-১৯ এর নমুনা পরীক্ষার ব্যবস্থা হয়েছে।

এসব পরীক্ষাগারে গত এক দিনে ১৩ হাজার ১৭৩টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে; এ পর্যন্ত দেশে পরীক্ষা হয়েছে ৮ লাখ ৭৩ হাজার ৪৮০টি নমুনা।

৩ হাজার ২৭ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছে। তাতে দেশে এ পর্যন্ত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৬৮ হাজার ৬৪৫ জনে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৩১ শতাংশ।


আইডিসিআরের ‘অনুমিত’ হিসাবে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ১ হাজার ৯৫৩ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন গত ২৪ ঘণ্টায়। তাতে সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল মোট ৭৮ হাজার ১০২ জনে। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৪৬ দশমিক ৩১ শতাংশ। 


তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনভাইরাস সংক্রমণে ৪৪ জনসহ মোট মৃতের সংখ্যা এখন ২,০৯৬ । শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যু হার ১ দশমিক ২১ শতাংশ।


নাসিমা সুলতানা বলেন, গত এক দিনে যারা মারা গেছেন, তাদের মধ্যে ৪৬ জন পুরুষ এবং ৯ জন নারী। দেশে এ পর্যন্ত যে ২ হাজার ১৫১ জন করোনাভাইরাসে মারা গেছেন, তাদের মধ্যে ১ হাজার ৭০৩ জন পুরুষ এবং ৪৪৮ জন নারী।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৩৯ জনের এবং বাড়িতে থাকা অবস্থায় ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। একজন হাসপাতালে মৃত অবস্থায় এসেছেন। 


এই ৫৫ জনের মধ্যে একজনের বয়স ছিল ৮০ বছরের বেশি। এছাড়া ৬ জনের বয়স ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে, ২১ জনের বয়স ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে, ১৮ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, ৬ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ২ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে, ১ জনের বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ছিল।

তাদের মধ্যে ৯৪০ জনের বয়স ছিল ষাটের বেশি; আর ১৩ জনের বয়স ছিল ১০ বছরের নিচে। এছাড়া ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ২৫ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ৭১ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের ১৫৫ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ৩২৩ জন এবং ৫১ থেকে ৬০ বছরের ৬২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে।


তাদের মধ্যে ২৭ জন ঢাকা বিভাগের, ১২ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ২ জন রাজশাহী বিভাগের, ২ জন সিলেট বিভাগের, ৭ জন খুলনা বিভাগের, ২ জন রংপুর বিভাগের, ২ জন বরিশাল বিভাগের এবং ১ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।

তাদের মধ্যে ১ হাজার ১০৪ জন ঢাকা বিভাগে, ৫৫৭ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ১০৭ জন রাজশাহী বিভাগের, ৬৫ জন রংপুর বিভাগের, ৯৭ জন খুলনা বিভাগের, , ৫২ জন ময়মনসিংহ, ৯১ জন সিলেট বিভাগের, ৭৮জন বরিশাল বিভাগের বিভাগের।



২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৪৯৫ জন ও ছাড় পেয়েছেন ৯১৪ জন । তবে, সাধারন বেডে চিকিৎসাধীন আছেন ৪১৫৬ জন এবং আইসিইউ বেডে চিকিৎসাধীন আছেন ২১০ জন । 


২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ৮০২জন ও ছাড় পেয়েছেন ৭২৩ জন । এ নিয়ে বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন ১৬,৮৭৩ জন ।

২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন ২,৪২৩ জন ও ছাড় পেয়েছেন ২,৭৯৮ জন । তবে, কোয়ারেন্টিনে আছেন ৬৩,৪৪১ জন।

 

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Average Rating

5 Star
0%
4 Star
0%
3 Star
0%
2 Star
0%
1 Star
0%

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *