দ্বিতীয় দফার করোনা সংক্রমণে বিধ্বস্ত দক্ষিণ কোরিয়া

0 0
Read Time:3 Minute, 20 Second

দ্যা ডেইলি নিউজ |  আন্তর্জাতিক ডেস্ক: দ্বিতীয় দফার করোনা সংক্রমণ ক্রমেই চিন্তার বিষয় হয়ে উঠছে বলে মনে করেন রাজধানী সৌলের মেয়র পার্ক উওন-সুন৷

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনভাইরাস সংক্রমণে ১ জন মারা গেছে এবং নতুন করে ৪৬ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছ ।

করোনা ভাইরাসের দৈনিক সংক্রমণের হার না কমলে আবার কড়া লকডাউনের দিকে যেতে পারে দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সৌল৷ আগামী তিনদিনের মধ্যে দৈনিক সংক্রমণের হার গড়ে ৩০-এর কম না থাকলে লকডাউন শুরু হবে বলে জানান মেয়র পার্ক উওন-সুন৷

সোমবার টেলিভিশনে সম্প্রচারিত একটি বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘‘যদি সৌল আবার করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়, তার মানে হচ্ছে গোটা কোরিয়ার আক্রান্ত হওয়া৷”

নতুন সংক্রমণের কারণ হিসাবে মেয়র বলেন, জনগণের উদাসীনতার কথা৷ গত বছর ঠিক যে সময়ে সংক্রমণ চরমে পৌঁছেছিল কোরিয়ায়, সেই সময়ের মতোই রাস্তাঘাটে লক্ষ্য করা যাচ্ছে ভিড়৷ সেভাবে মানাও হচ্ছে না শারীরিক দূরত্ব৷ বর্তমান সংক্রমণের হারকে একটি গবেষণার পরিপ্রেক্ষিতে রেখে তিনি বলেন যে, এই হারে চললে এক মাসের মধ্যে দৈনিক ৮০০টি নতুন সংক্রমণ দেখতে হবে কোরিয়াতে৷

এদিকে আরেকটি বিবৃতিতে কোরিয়ার সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের পরিচালক জিওং ইউন-কিওং বলেন, আসলেই দ্বিতীয় দফার সংক্রমণের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়া৷ বিশেষ করে দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের শহর দায়েগুর আশেপাশের অঞ্চলগুলিতে৷

মে মাসের শেষ থেকেই নতুন করে দৈনিক ৪০ থেকে ৫০টি করে সংক্রমণের খবর পাওয়া যাচ্ছিল৷ এই সংক্রমণের বেশির ভাগই ছিল সৌল ও তার আশেপাশে৷ মার্চের শেষের দিক থেকে শারীরিক দূরত্ব, কন্ট্যাক্ট ট্রেসিং এবং গণহারে পরীক্ষা চালানোর কড়াকড়ি বাড়ায় নিয়ন্ত্রণে আনতে পেরেছিল দক্ষিণ কোরিয়া কর্তৃপক্ষ৷

কিন্তু বর্তমানে বাড়ন্ত সংক্রমণের ঘটনায় নতুন করে বিপদের ঝুঁকিতে রয়েছে সৌল৷

জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির উপাত্ত অনুযায়ী, বাংলাদেশ সময় সোমবার রাত পর্যন্ত ১৩ হাজার ১৩৭ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে, তাদের মধ্যে মারা গেছেন ২.৮৪ জন। এ পর্যন্ত ১১ হাজার ৮৪৮ জনজন রোগী সুস্থ হয়েছেন । 

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %