নিউইয়র্কে ফাহিম হত্যাকাণ্ড: খুনিকে শনাক্ত করেছে পুলিশ

0 0
Read Time:4 Minute, 11 Second

আন্তর্জাতিক : যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে চাঞ্চল্যকর ফাহিম সালেহ হত্যাকান্ডের ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছে নিউইয়র্ক পুলিশ। একদিনের তদন্তে ফাহিমের খুনিকে শনাক্ত এবং খুনের কারণ জানতে পেরেছে পুলিশ।

খুনিকে গ্রেফতারে জোর তৎপরতা চলছে বলে অনানুষ্ঠানিকভাবে নিউইয়র্ক পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে।

এর আগে, বুধবার (১৫ জুলাই) ম্যানহাটনে নিজ অ্যাপার্টমেন্টে খুন হন পাঠাও-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহ (৩৩)। ব্যবসায়িক লেনদেনের জেরে ফাহিমকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তদন্ত শেষ কিংবা খুনি গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত পুলিশ আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো তথ্য প্রকাশ করছে না।

এ ব্যাপারে তদন্ত সংশ্লিষ্ট নিউইয়র্ক পুলিশের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, এ ধরনের হত্যাকান্ডে দুটি লক্ষ থাকে। একটি হচ্ছে, মাফিয়া স্টাইলে অন্যদের জন্য ভয়াবহতার বার্তা দেওয়া। অন্যটি হচ্ছে ব্যক্তিকে একদম শেষ করে দেওয়া। শেষের যুক্তিটিই এখানে প্রাধান্য পাচ্ছে।

ওই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, হত্যাকারী ফাহিমের মরদেহ টুকরো টুকরো করে ব্যাগে ভর্তি করেছে। এক ফাঁকে ধুয়ে মুছে রক্ত পরিষ্কার করেছে। ঘটনাস্থলে তেমন রক্তের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। কেউ আসছে বা দরজায় বেল দিচ্ছে, এমন ঘটনার পর খুনি সাততলা অ্যাপার্টমেন্টের পেছনের সিঁড়ি দিয়ে নেমে যায়। এ জন্য তাকে স্পেয়ার চাবি ব্যবহার করতে হয়েছে। ফলে এ ধরনের ‘এক্সিট পরিকল্পনা’ আগে থেকেই নেওয়া ছিল বলে মনে করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, এর মধ্যে ইলেকট্রিক করাতে ও অন্যত্র আঙুলের ছাপ পেয়েছে পুলিশ। পেছনের সিঁড়ি দিয়ে নামলেও নিউ ইয়র্ক নগরী সর্বত্র এখন সিসি ক্যামেরার আওতায়। এসব ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিও চিত্র দেখে খুনিকে চিহ্নিত করা গেছে।

এদিকে, নিউইয়র্ক পুলিশ ফাহিম সালেহর অ্যাপার্টমেন্টের সিসি ক্যামেরা ফুটেজ উদ্ধার করেছে।

সেখান থেকে দেখা যাচ্ছে, সোমবার (১৩ জুলাই) শেষবার তিনি বাসায় প্রবেশ করার পর আর বের হননি। এ সময় সন্দেহভাজন খুনিকে হাতে গ্লাভস, মুখে মাস্ক ও স্যুট পরিহিত অবস্থায় ব্রিফকেস নিয়ে ফাহিম সালেহর পেছনে ঢুকতে দেখা যায়।

এক পুলিশ কর্মকর্তা নিউ ইয়র্কের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ডেইলি নিউজকে বলেন, সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তির হাতে একটি ব্রিফকেস ছিল। তাকে ‘অত্যন্ত পেশাদার’ মনে হয়েছে। বাসায় ওঠার জন্য লিফট থেকে বের হওয়ার সঙ্গেসঙ্গেই সালেহকে ওই ব্যক্তি আঘাত করেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, সৌদিআরবে জন্ম নেওয়ার পর নিউইয়র্কে বেড়ে ওঠা বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণ মিলিওনিয়ার ফাহিম সালেহ গত বছর থেকে ম্যানহাটনের ওই বিলাসবহুল অ্যাপার্টমেন্টে বসবাস শুরু করেন। সেখানেই তাকে হত্যা করা হয়।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %