‘করোনার স্থায়িত্ব নিয়ে কাণ্ডজ্ঞানহীন বক্তব্য মোটেও সমীচীন নয়’

0 0
Read Time:4 Minute, 23 Second

দ্যা ডেইলি নিউজ / ID/19 06 2020/TDNB/000101 02P

নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রকোপ আরও কতদিন থাকতে পারে— এ বিষয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন ও কাণ্ডজ্ঞানহীন’ বক্তব্যে জনমনে হতাশা তৈরি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার (১৯ জুন) সকালে নিজের সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন তিনি। তবে তিনি এসময় স্বাস্থ্য বিভাগের ওই কর্মকর্তার নাম উল্লেখ করেননি।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) কোভিড-১৯ সংক্রান্ত স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত বুলেটিনে যুক্ত হয়ে অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, বিশ্বব্যাপী জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বিভিন্ন গবেষণার পরিপ্রেক্ষিতে যা ধারণা করছেন, তাতে আমাদের দেশেও আরও দুই-তিন বছর করোনাভাইরাসের প্রকোপ থাকতে পারে। তবে এর মাত্রা অনেক কমে আসবে।

আরও পড়ুন-  বাংলাদেশ থেকে করোনাভাইরাস সহসাই যাচ্ছে না, ২-৩ বছর থাকতে পারে – স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক

সংশ্লিষ্টরা বরছেন, ওবায়দুল কাদের ডিজি হেলথের এ বক্তব্যেরই সমালোচনা করে থাকতে পারেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ সরকার দিনরাত পরিশ্রম করে মানুষের মনোবল চাঙ্গা রাখার নিরলস প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে, করোনা যোদ্ধাদের প্রতিনিয়তই সাহস দিয়ে যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য বিভাগের কোনো কোনো ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার করোনার আয়ুস্কাল নিয়ে অদূরদর্শী ও দায়িত্বজ্ঞানহীন বক্তব্য জনমনে হতাশা তৈরি করেছে। এই সময়ে দায়িত্বশীল পদে থেকে কারও দায়িত্বজ্ঞানহীন বক্তব্য রাখা মোটেও সমীচীন নয়। আমি এ ধরনের সমন্বয়হীন দায়িত্বজ্ঞানহীন বক্তব্য থেকে নিজেদের বিরত রাখার অনুরোধ জানাচ্ছি।

আওয়ামী লীগের এই সাধারণ সম্পাদক করোনা সংকটের সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে চিকিৎসকদের অবদানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। একইসঙ্গে খুলনায় একজন চিকিৎসককে পিটিয়ে মেরে ফেলার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান। বর্তমান পর্যায়ে সরকারি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রশাসনকে সহযোগিতা করারও আহ্বান জানান।

সরকারের এই মন্ত্রী আরও বলেন, জোনভিত্তিক লকডাউন সিদ্ধান্ত পাওয়ার পরপরই দ্রুত এবং কার্যকরভাবে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে হবে। প্রতিষ্ঠা করতে হবে সুসমন্বয়। যেসব এলাকা লকডাউন করা হবে, সেসব এলাকায় জনসাধারণকে ধৈর্য ধরে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের আশার শেষ ঠিকানা, চেতনার বাতিঘর, সংকটে দৃঢ় আস্থা শেখ হাসিনা দিনরাত নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে দলীয় নেতাকর্মীরা সাহসী ও মানবিক ভূমিকা পালন করবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সবার সহযোগিতায় বাংলাদেশ এ সংকট কাটিয়ে উঠবে বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %