সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন করোনায় আক্রান্ত

0 0
Read Time:4 Minute, 27 Second

দ্যা ডেইলি নিউজ / ID/19 06 2020/TDNB/000108

ফরিদপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য ও এলজিআরডি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

শুক্রবার (১৯ জুন) দুপুর আড়াইটার দিকে ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, তিন-চার দিন আগে পরীক্ষা করিয়েছি। গতকাল (বৃহস্পতিবার) রিপোর্ট পেয়েছি। রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

তবে আমার তেমন কোনো উপসর্গ ছিল না। জ্বর-কাশি বা অন্য কোনো উপসর্গও নেই এখনো। আসলে পরীক্ষা না করালে বুঝতেই পারতাম না যে আমিও করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছি।

তিনি আরও বলেন, অন্যদের পরামর্শে করোনা পরীক্ষা করিয়েছিলাম। রেজাল্ট পজিটিভ এলেও অবশ্য মানসিকভাবে ঠিক আছি। বাসায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চিকিৎসা নিচ্ছি।

সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেয়াই হন ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন। প্রধানমন্ত্রীর মেয়ে সায়মা হোসেন পুতুলের বিয়ে হয়েছে খন্দকার মোশারফের ছেলে মাসরুর হোসেনের সঙ্গে।

খন্দকার মোশাররফ হোসেনের জন্ম ১৯৪২ সালে ব্রিটিশ ভারতের বেঙ্গল প্রেসিডেন্সির ফরিদপুর জেলায় (বর্তমান বাংলাদেশ)। তিনি ১৯৬৩ সালে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক এবং ১৯৭৪ সালে যুক্তরাজ্যের স্ট্রেথক্লেইড ইউনিভার্সিটি থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।

খন্দকার মোশাররফ হোসেন ১৯৮০ সালে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে যোগদান করেন।

তিনি আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) প্রধান কারিগরি পরামর্শক হিসেবে সিয়েরা লিওনে (১৯৮০-৮৯) এবং উগান্ডায় (১৯৮৯-৯০) কর্মরত ছিলেন।

তিনি যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশি প্রবাসীদের অধিকার সংরক্ষণের লক্ষ্যে মহারাণী এলিজাবেথের সঙ্গে দুটি ফলপ্রসূ সভায় নেতৃস্থানীয় অংশ গ্রহণকারী ছিলেন।

তিনি বাংলাদেশ চেম্বার অফ ইন্ডাস্ট্রিজের (বিসিআই) সাবেক সভাপতি ছিলেন এবং তিনি ফরিদপুর বিভাগ ও পদ্মা সেতু বাস্তবায়ন কমিটির বর্তমান চেয়ারম্যান। খন্দকার মোশাররফ হোসেন স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোস্থ বাংলাদেশ সমিতিরও সভাপতি এবং উত্তরা ক্লাবেরও সভাপতি ছিলেন।

২০০৯ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি প্রথম সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি ১০ম সংসদ নির্বাচনে খন্দকার মোশাররফ হোসেন ফরিদপুর-৩ আসন থেকে দ্বিতীয়বারের মতো সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন। এর আগেও তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।

২০১৫ সালের ৯ জুলাই মোশাররফ হোসেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব পান। তিনি নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত হিসেবে ২০১৮ সালের ১১ ডিসেম্বর প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হোন।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %